ঢাকা      সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
IMG-LOGO
শিরোনাম

লালমনিরহাটে তিস্তার পানি পানি কমতে শুরু করলেও কমেনি ভোগান্তি

IMG
22 October 2021, 12:41 PM

লালমনিরহাট, বাংলাদেশ গ্লোবাল: তিস্তার পানি বিপদসীমার নীচ দিয়ে প্রবাহিত হলেও কমেনি বানভাসীদের ভোগান্তি। বন্যা পরিস্থিতি এখনও অপরিবর্তিত রয়েছে। বানের পানিতে ভেঙ্গে গেছে রাস্তাঘাট। উল্টে পড়েছে বৈদ্যুতিক খুঁটি। বন্ধ রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

বাঁধ ও নয়টি আশ্রয়ন কেন্দ্রে বানভাসী মানুষ গবাদি পশু নিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। জেলার ৪টি উপজেলার প্রায় ২০ হাজার পরিবার এখনও পানিবন্দী অবস্থায় রয়েছে। গত বুধবারের আকস্মিক বন্যায় লন্ডভন্ড হয়েছে নদী পাড়ের গ্রামগুলো।

ভারতের উজান থেকে ধেয়ে আসা পাহাড়ি ঢলে তিস্তা ব্যারেজের ভাটিতে থাকা লালমনিরহাটের ৪টি উপজেলার তীরবর্তী বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পানির ঢলে রাস্তাঘাট ভেঙ্গে তলিয়ে যায় বসতভিটা।

তলিয়ে যায় আগাম আলু আবাদ ও উঠতি আমন ধান ক্ষেত। বানভাসী মানুষজন তাদের গবাদি পশু নিয়ে আশ্রয় নেন উঁচু স্থান ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। কাকিনা মহিপুর সেতু হয়ে রংপুরে যাওয়ার সড়কটি পানির তোড়ে ভেঙ্গে গেছে। এই সড়কে যান চলাচল এখনও স্বাভাবিক হয়নি।

লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক আবু জাফর জানান, জেলায় ১৭ হাজার পরিবার পানিবন্দী অবস্থায় রয়েছে। তাদের খাদ্য সহায়তার জন্য ১৭০ মেট্রিক টন জিআর চাল ও নগদ ৮ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। জেলার বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে প্রায় ২০০ পরিবার আশ্রয় নিয়েছে বলেও জানান তিনি।

সর্বশেষ খবর

আরো পড়ুন