ঢাকা      সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
IMG-LOGO
শিরোনাম

প্রথম মৃত্যবার্ষিকীর আগে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত ম্যারাডোনা, উত্তাল ফুটবল বিশ্ব

IMG
24 November 2021, 9:49 AM

স্পোর্টস ডেস্ক, বাংলাদেশ গ্লোবাল: আগামীকাল ফুটবল বিংবদন্তি ডিয়েগো ম্যারাডোনার প্রথম মৃত্য়ুবার্ষিকী। গত বছরের ২৫ নভেম্বর মারা যান ছিয়াশির বিশ্বকাপ জয়ী আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। আর তার আগেই মারাডোনা এক নতুন বিতর্কে। কিউবার এক মহিলা দাবি করেছেন, তাঁকে ১৬ বছর বয়সে ধর্ষণ করেছিলেন ফুটবলের রাজপুত্র। এই বিতর্ক ঘিরে নতুন করে উত্তাল ফুটবল বিশ্ব।

কিউবার এক যুবতী তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনেছেন। ম্যাভিস আলভারেজ নামের ৩৭ বছরের ওই যুবতীর অভিযোগ, ২১ বছর আগে হাভানায় তাঁকে ধর্ষণ করেন মারাডোনা। ১৬ বছর বয়সে ধর্ষিতা হওয়ায় তাঁর ছোটবেলা নষ্ট হয়ে গিয়েছিল বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

গত সপ্তাহে আর্জেন্টিনার ন্যায়বিচার মন্ত্রণালয়ের সামনে জবানবন্দি দেন তিনি। তার আগে বুয়েনস আয়ার্সে সংবাদমাধ্যমের সামনে তিনি জানান, ম্যারাডোনার বয়স তখন ৪০ বছর। মাদকের নেশা ছাড়ানোর জন্য হাভানায় একটি ক্লিনিকে থাকতেন ডিয়েগো। সেখানেই আলভারেজকে ধর্ষণ করেন তিনি। আলভারেজ বলেন, ‘আমার মুখ বেঁধে ধর্ষণ করেন ম্যারাডোনা। পাশের ঘরে আমার মা ছিল। আমার ছোটবেলাটা নষ্ট করে দিয়েছিল ও। সেই সময়ের কথা ভাবলে আজও আমি আঁতকে উঠি।’

আলভারেজ জানান, তারপর থেকে বেশ কয়েক বছর তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক রেখেছিলেন ম্যারাডোনা। তাঁর পরিবারের সেই সম্পর্কে আপত্তি থাকলেও তাঁরা মুখে কিছু বলতে পারেননি। কারণ কিউবা সরকারের সঙ্গে ভাল সম্পর্ক ছিল ফুটবল তারকার। এই বিষয়ে অবশ্য এখনও কিছু মন্তব্য করেনি কিউবা সরকার।

এই ঘটনার পরে প্রশ্ন উঠেছে, ম্যারাডোনার ম়ৃত্যুর পর কেন ধর্ষণের অভিযোগ করলেন আলভারেজ। তার জবাবে তিনি বলেন, ‘যে সব মহিলারা এই ধরনের ঘটনার শিকার তাঁদের সাহায্যের জন্য মুখ খুলেছি। আমি যতোটা পারব তাঁদের সাহায্য করবো।’ যদিও এ বিষয়ে ম্যারাডোনার আইনজীবী বা তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে কোন মন্তব্য করা হয়নি। ম্যারাডোনা বরাবর বিতর্কিত চরিত্র। মৃত্যুর পরও যে তাঁকে ঘিরে বিতর্ক পিছু ছাড়বে না, তা অবশ্য আন্দাজ করা যায়নি।

সর্বশেষ খবর

আরো পড়ুন